মেনু নির্বাচন করুন
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নেত্রকোনা

বাংলাদেশের নাগরিকদের বিদেশে যাতায়াতে সহায়তা প্রদানের লÿÿ ১৯৬২ সালে একটি পরিদপ্তর হিসেবে জোনাল কার্যলয়, ঢাকা এবং আঞ্চলিক পাসপোট অফিস ঢাকা,  চট্রগ্রাম, সিলেট,রাজশাহী ও খুলনা নিয়ে বর্তমান বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর এর কার্যক্রম শুরম্ন হয়। স্বাধীনতাত্তোরকালে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে ১৯৭৩ সালে পূর্ণাঙ্গ রম্নপে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকায় অবস্থিত অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়সহ ঢাকা, চট্রগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী ও খুলনা অফিস সমন্বয়ে কার্যালয় সংখ্যা হয় ৬ (ছয়) টি। ২০১০ সালে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরে একটি বৈপস্নবিক পরিবর্তন আসে। ইন্টারন্যশনাল সিভিল এভিয়েশন অথরিটি (আইসিএও) এর গাইডলাইন এর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মেশিন রিডাবল পাসপোর্ট (এমআরপি) ও মেশিন রিডাবল ভিসা (এমআরভি) প্রদান কার্যক্রম শুরম্ন হয়। সেই সঙ্গে ১৯ টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস স্থাপিত হলে অফিসের সংখ্যা হয় ৩৪ (চৌত্রিশ)  টি। এছাড়া ৬টি ভিসা সেল ও ৯টি ইমিগ্রেশন চেকপোষ্ট সৃজিত হয়। ২০১১ সালে আরো ৩৩ (তেতত্রিশ) টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস সৃজিত হয়। বর্তমানে দেশের প্রতিটি জেলায় পাসপোর্ট অফিস স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়া বিশ্বের ৬৫টি বাংলাদেশী মিশনে এমআরপি ও এমআরভি প্রকল্প বাসত্মবায়িত হয়েছে। বর্তমানে  বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের জনবল ১১৮৪ জন। ২০১৪ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর পর্যমত্ম  ৯১,৫২,২৯১ টি মেশিন রিডাবল পাসর্পোট (এমআরপি) ও ১,০০,০০০ মেশিন  রিডাবল  ভিসা (এমআরভি) প্রদান করা হয়েছে ।

  • কী সেবা কীভাবে পাবেন
  • প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা
  • সিটিজেন চার্টার
  • সাধারণ তথ্য
  • সাংগঠনিক কাঠামো
  • কর্মকর্তাবৃন্দ
  • তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা
  • কর্মচারীবৃন্দ
  • বিজ্ঞপ্তি
  • ডাউনলোড
  • আইন ও সার্কুলার
  • ফটোগ্যালারি
  • প্রকল্পসমূহ
  • যোগাযোগ

নতুন আবেদনকারী / হাতে লেখা পাসপোর্ট সমর্পণকৃতদের  (surrendered) জন্য

জরম্নরী  (০৭ কর্ম দিবস)

ভ্যাট সহ ৬,৯০০/= টাকা

সাধরণ (২১ কর্ম দিবস)

ভ্যাট সহ ৩,৪৫০/= টাকা

অনাপত্তি  সনদ (NOC)  থাকলে (জরম্নরী সুবিধাসহ ফিস)

ভ্যাট সহ ৩,৪৫০/= টাকা

সরকারী আদেশ (GO) থাকলে  (জরম্নরী সুবিধাসহ ফিস)

বিনামূল্যে

           re-issue

জরম্নরী  (০৭ কর্ম দিবস)

ভ্যাট সহ ৬,৯০০/= টাকা

সাধরণ (২১ কর্ম দিবস)

ভ্যাট সহ ৩,৪৫০/= টাকা

১। ০২ (দুই) কপি নতুন (এমআরপি) ফরম নিকটস্থ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস/বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিস হতে অথবা অনলাইনে (WWW.dip.gov.bd) সংগ্রহ করম্নন। বাংলাদেশ পাসপোর্ট  রম্নলস  অনুসারে  যাদের  ÿÿত্রে পুলিশ তদমত্ম বাধ্যতামূলক নয় তারা দুইটি ফরমের পরিবর্তে একটি ফরমে আবেদন করতে পারবেন।

২। আবেদনপত্র সঠিক এবং সম্পূর্ণভাবে পূরণ করম্নন।

৩। জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন অনুসরণ করে আবেদনপত্র পূরণ করম্নন।

৪। প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য প্রতিটি ফরমের নির্ধারিত স্থানে একটি পাসপোর্ট সাইজের (৫.৫ সেঃমিঃX৪.৫সেঃমিঃ) ছবি আঠা দিয়ে সংযুক্ত করম্নন।

৫। আবেদনপত্রের উপর ছবি সংযুক্ত করার পর ছবি সত্যায়ন করম্নন। এমন ভাবে সত্যায়িত করম্নন যাতে কিছু অংশ ছবির উপর এবং কিছু অংশ ফরমের উপর পরে। যিনি ছবি সত্যায়ন করবেন তিনি ফরমের শেষে প্রত্যায়ন অংশ পূরণ করবেন।

৬। আবেদন পত্রের সাথে জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা ডিজিটাল জন্ম সনদের সত্যায়িত ফটোকপি সংযুক্ত করম্নন এবং মূল কপি সঙ্গে রাখুন।

৭। সোনালী ব্যাংকের অনুমোদিত শাখায় (নেত্রকোনা করপোরেট শাখা) নিধারিত ফি জমা করে প্রাপ্ত রশিদ ফরমের উপর আঠা দিয়ে সংয়ুক্ত করম্নন।

৮। আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস নেত্রকোনায় আবেদন ফরমটি জমা দেওয়ার জন্য আসুন।

৯।আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস সমূহে আবেদনপত্র গ্রহণের পর আবেদনকারীর তথ্য কম্পিউটারে লিপিবদ্ধ করা হয় (PRE-ENROLMENT) এবং একটি রশিদ প্রদান করা হয় সেখানে আপনার তথ্য সঠিক আছে কিনা যাচাই করে নিবেন। তথ্যে কোন প্রকার ভূল থাকলে সংশিস্নষ্ঠ কম্পিউটার অপারেটরকে অবহিত করম্নন তারপর ছবি,আঙ্গুলের ছাপ এবং স্বাÿর নেওয়া হবে যাকে বলা হয় নিবন্ধন(BIO-ENROLMENT)। নিবন্ধনের পর ডেলিভারী রশিদ দেওয়া হবে, যার উপর পাসপোর্ট প্রদানের সম্ভাব্য তারিখ দেওয়া থাকবে।

১০। ১৫ বছরের কম বয়সের আবেদনকারীর ÿÿত্রে পিতা- মাতার একটি করে রঙ্গিন ছবি উভয় ফরমে আঠা দিয়ে সংযুক্ত করে সত্যায়িত করম্নন।

১১। ফরম পূরণ করার সময় যদি কোন জটিলতায় পরেন তাহলে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের কর্মকতা/কর্মচারীর সাহায্য নিতে পারেন।

১২। জরম্নরী মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট প্রাপ্তির ÿÿত্রে ০৭ (সাত) কর্ম দিবসের মধ্যে (পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেÿÿ) ভ্যাটসহ ৬,৯০০/=(ছয় হাজার নয় শত) টাকা ও সাধারন ২১(একুশ) কর্ম দিবসের মধ্যে (পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেÿÿ) ভ্যাটসহ ৩,৪৫০/=(তিন হাজার চার শত পঞ্চাশ) টাকা ফি প্রদান করতে হবে।

১৩। প্রযোজ্য ÿÿত্রে প্রাসঙ্গিক  জিও (GO), এনওসি (NOC) দাখিল করতে হবে।

১৪। আপনার বর্তমান পাসপোর্টটি হারিয়ে গেলে, মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে, মেয়াদ আছে কিন্তু পাতা শেষ হয়েছে অথবা ব্যবহারের অনুপযোগী হলে মেশিন রিডাবল পাসপোটের্র জন্য আবেদন করতে হবে। নতুন এমআরপি পাসপোর্টে পুরাতন পাসপোর্টের নম্বর উলেস্নখ থাকবে।

১৫। এমআরপি সংশিস্নষ্ঠ যে কোন তথ্যের জন্য পাসপোর্ট অফিসের নির্ধারিত তথ্য কেন্দ্রে যোগাযোগ করম্নণ।

১৬। পাসপোর্ট গুরম্নত্বপূর্ণ দলিল সুতরাং সঠিক তথ্য দিয়ে এবং সার্বিক নিয়ম মেনে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করম্নণ।

১৭ এমআরপি পাসপোর্টের কোন পরিবর্তন করতে চাইলে ম্যাজষ্ট্রেট এফিডেভিট  আবেদন পত্রের সাথে দাখিল করতে হবে।

১৮। একজন ব্যক্তি একটি মাত্র এমআরপি পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারবে।

ব্যাংকে  পাসপোর্ট ফি জমা দান

সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, নেত্রকোনা শাখা, নেত্রকোনায় এমআরপি ফি জমা নেয়া হচ্ছে। এছাড়াও অনলাইনে নিমণলিখিত  প্রাইভেট ব্যাংকের যে কোন শাখায় পাসপোর্ট ফি জমা নেয়া হচ্ছে। ব্যাংক এশিয়া  লিমিটেড, ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড, ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড।

ছবি নাম মোবাইল
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ০১৭১১৩৩২৩৯৩

ছবি নাম মোবাইল

এমআরপি এন্ড এমআরভি প্রকল্প,

বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর,

 আগারগাও, ঢাকা

সহকারী পরিচালক, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, পশ্চিম সাতপাই, নেত্রকোনা।

ফোন নং-             ০৯৫১-৬১৫৯৩ ।

ওয়েবসাইটঃ         www.dip.gov.bd

ইমেইল আইডি-     rponetrogona@passport.gov.bd